মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

টুইটার কেনা নিয়ে আইনি জটিলতায় ইলন মাস্ক

ইলন মাস্ক ও টুইটারের বিরুদ্ধে গতকাল শুক্রবার মামলা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা পেনশন তহবিল। এ মামলার কারণে ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে মাস্কের টুইটার কেনার প্রচেষ্টা আইনি জটিলতায় পড়ল। খবর রয়টার্সের।

ডেলাওয়্যার চ্যাঞ্চারি কোর্টে মামলাটি দায়ের করা হয়। অরল্যান্ডো পুলিশ পেনশন তহবিল মামলায় বলেছে, ডেলাওয়্যারের আইন অনুযায়ী ২০২৫ সালের আগে মাস্ক টুইটার কেনার চুক্তি সম্পন্ন করতে পারবেন না। কারণ, প্রতিষ্ঠানটি কিনতে টুইটারের আর্থিক উপদেষ্টা মরগান স্টানলি ও প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডরসির মতো অন্য বড় শেয়ারধারীদের সঙ্গে মাস্কের চুক্তি আছে।

পেনশন তহবিল বলছে, টুইটারে মাস্কের নিজের ৯ দশমিক ৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। এই দুই শেয়ারধারীর সঙ্গে তাঁর চুক্তি হওয়ায় তিনি এখন কোম্পানির ১৫ শতাংশের বেশি শেয়ারের কার্যকর ‘মালিক’। আইন অনুযায়ী মাস্কের মালিকানায় না থাকা দুই-তৃতীয়াংশ শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের সমর্থন না পাওয়া পর্যন্ত চুক্তি সম্পন্ন করার প্রক্রিয়া তিন বছর পেছাতে হবে। মর্গান স্টানলি ৮ দশমিক ৮ শতাংশ আর ডরসি ২ দশমিক ৪ শতাংশ টুইটার শেয়ারের মালিক।

মামলায় ডরসি, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) পরাগ আগরওয়ালসহ টুইটার এবং এর পরিচালনা পরিষদকেও বিবাদী করা হয়।

টুইটার এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। মাস্কের আইনজীবী ও ফ্লোরিডা তহবিলের বক্তব্য জানতে চাওয়া হলেও তারা তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী মাস্ক টেসলা ইনকরপোরেশনের সিইও ছাড়াও দ্য বোরিং কোম্পানি এবং স্পেসএক্সের প্রধান। মালিকানা পেলে তিনি টুইটারেরও সিইও হতে পারেন বলে বিষয়টির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে।

সম্প্রতি এক বৈঠকে ইলন মাস্কের কাছে টুইটার বিক্রির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পরিষদ। ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে প্রতিষ্ঠানটি বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। তবে মাস্কের কাছে টুইটার বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্তে প্রতিষ্ঠানটির ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

এ ছাড়া মাস্ক টুইটার কিনে নিতে যাচ্ছেন—এমন খবরে জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যমটির ভারতীয় সিইও পরাগ আগরওয়ালের ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। গত নভেম্বরে ওই দায়িত্ব নিয়েছিলেন পরাগ।